রাজশাহীরাজশাহীর সংবাদ

রাজশাহী মহানগরীতে পূর্ব শত্রুতার জেরে হত্যা, আটক ২

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

আজ ৭ নভেম্বর রবিবার বেলা ১১.৩০ মিনিটে আরএমপির সংবাদ সম্মেলনে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের সম্মানিত পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক মহোদয় বিষয়টি সাংবাদিকদের অবগত জানান, মহানগরীর রাণীনগর এলাকায় বাড়ীতে প্রবেশ করে ছুরিকাঘাতে পিয়ারুল ইসলাম পিরু (৩৪) কে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত ২ ঘাতককে আটক করেছে বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশ। এ সময় আসামীদের কাছ থেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত লোহার রড, জিআই পাইপ উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত আসামীরা হলেন- রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার রাণীনগরের মোঃ হাসিবুলের ছেলে মোঃ শিমুল (২১) ও সাধুর মোড়ের মোঃ তারিকের ছেলে মোঃ সোহানুর রহমান সোহান (২২)।

জানা যায়, গতকাল ৬ নভেম্বর রাত ৭ টায় মোঃ পিয়ারুল ইসলাম পিরু (৩৪) তার বাসার সামনে অবস্থান করছিলো। ঐ সময় আসামী মোঃ হাসান আলী জয় (২৭) তাকে তুমি বলে সম্বোধন করায় তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। উক্ত ঘটনার জেরে কিছুক্ষণ পরে আসামী হাসান আলী জয়সহ কয়েকজন মিলে হাতে ধারালো চাকু, লোহার রড, জিআই পাইপ, বাঁশের লাঠি নিয়ে এসে বাড়ীতে প্রবেশ করে পিয়ারুলকে এলোপাথাড়ীভাবে মারধর করে এবং বুকে ও হাঁটুর উপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে হত্যা করে।

পরে পুলিশের জরুরী সেবা ৯৯৯-এর মাধ্যমে প্রাপ্ত সংবাদের প্রেক্ষিতে বোয়ালিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব নিবারন চন্দ্র বর্মন পিপিএম ও তার টিম দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সাক্ষীদের সনাক্ত মতে ঘটনার সাথে সরাসরি জড়িত আসামী মোঃ শিমুল ও সোহানুর রহমান সোহানকে আটক করে। এ সময় আসামীদের কাছ থেকে পিয়ারুলকে মারধরসহ হত্যার কাজে ব্যবহৃত চাকু, লোহার রড, জিআই পাইপ উদ্ধার করা হয়। মৃতের বড় ভাই মোঃ নজরুল ইসলাম খসরুর লিখিত এজাহারের প্রেক্ষিতে বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি নিয়মিত হত্যা মামলা রুজু হয়েছে।

আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, ইতোপূর্বে আসামী শিমুল ও তার অন্যান্য সহযোগীরা পিয়ারুলকে মেরে পা ভেঙ্গে দিয়েছিল। সেই ঘটনায় বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি মামলা রুজু হয়।

ঐ মামলাকে কেন্দ্র করে আসামীরা পূর্ব শক্রতার জের ধরে পরিকল্পিতভাবে পিয়ারুলকে হত্যা করে। অন্যান্য আসামীদের আটকের অভিযান অব্যাহত রয়েছে এবং আটককৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button