গোদাগাড়ীরাজশাহীসংবাদ সারাদেশ

গোদাগাড়ীর জনসমর্থনে যুবলীগ নেতার স্বতন্ত্র প্রার্থী, বিপ্লব

গোদাগাড়ী প্রতিনিধিঃ

আগামি ১১ নভেম্বর গোদাগাড়ী উপজেলায় দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন। সেই নির্বাচনে ৫ নং গোগ্রাম ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে লড়াই করবেন যুবলীগ নেতা মোঃ মাসুদ পারভেজ (বিপ্লব) এবং গোদাগাড়ী উপজেলার বর্তমান (সাধারণ সম্পাদক) বঙ্গবন্ধুর আদর্শের মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাহসী সাবেক ছাত্রনেতা।

সংবাদ চলমান কে তিনি জানান, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে আওয়ামী লীগ রাজনীতিতে যাত্রা শুর হয় ৯৮৯ সালে প্রেমতলি ডিগ্রী কলেজের ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার মধ্য দিয়ে এবং দুসসময়ে আওয়ামী লীগের ডাকে নির্যাতন সয্য করে রাজপথে আন্দোলন সংগ্রাম করেছেন। সেই ধারাবাহিকতাই গোদাগাড়ী উপজেলার ১৯৯১ সালে প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক দায়িত্ব পান আওয়ামী ছাত্রলীগের সংগঠন কে ত্যাগ স্বীকার করে ছাত্রলীগ কে শক্তিধর ভৃমিকা রাখেন। পরবর্তী সময়ে নিজ ইউপি ৫ নং গোগ্রামে ২০০৩ থেকে ২০১৪ পর্যন্তো ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন এর মধ্য দিয়ে দুই বার সভাপতি নির্বাচিত হয়।

তার অবদানে গোগ্রাম ইউপিতে যুবলীগ সংগঠন কার্যক্রম প্রবাহমান। আবারও ২০১৫ সালে গোদাগাড়ী উপজেলার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন হলে, সেই সম্মেলনের মধ্য দিয়ে সাধরণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়। তিনি জানান, ২০০৩ সালে ৮ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়। সদস্য থাকা অবস্থায় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়। চেয়ারমান দায়িত্ব থাকা অবস্থায় গোগ্রাম ইউপির প্রান্তিক মানুষের মাঝে উত্তম সেবা পৌঁছাতে সক্ষম হন। সেই সমায় থেকেই ৫ গোগ্রাম ইউপির সার্বজনীন মানুষ এর কাছে জনপ্রিয় ব্যাক্তি পরিচিতি লাভ করেন। বিগত ইউপি নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চেয়ে ছিলেন। কিন্তু দলীয় সিদ্ধান্তকে মেনে নিয়ে নৌকা প্রার্থী কে জয়যুক্ত করেন। শুধু তাই নয় জাতীয় নির্বাচন উপজেলা পৌরসভা বিগত সমায়ে যত নির্বাচন হয়েছে, প্রতিটি নির্বাচনে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে নিষ্ঠা ও সততার সহীত, নিরলস পরিশ্রম করে আওয়ামী লীগ পদপ্রার্থী কে জয়যুক্ততে কঠোর ভৃমিকা রাখেন।

তার এই ত্যাগ পরিশ্রম স্বীকার কে প্রাধান্য দিয়ে বিগত সময়ে তৃণমূল দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক এই বার ইউপি নির্বাচনে শতভাগ নৌকার মাঝি করার আশাবাদ করেছিল। স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ মাসুদ পারভেজ (বিপ্লব) আক্ষেপ করে বলেন, এই বার তিনি অপ রাজনিতীর স্বীকার হয়ে আমার দীর্ঘ সময়ের বঙ্গবন্ধুর আদর্শের মুক্তিযুদ্ধের চেতনার রাজনীতির নীতি-নৈতিকতা আদর্শ পরাস্ত করে, আমাকে নৌকার মাঝি হওয়া থেকে বঞ্চিত করে। তাই স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সর্বস্তরের জনগণকে সাথে নিয়ে ইনশাল্লাহ বাস্তবায়ন করার শতভাগ আশাবাদী।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা ও মাননীয় এমপি মহাদয় আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরীর অর্জনকে, অপ রাজনীতির হাতে বিলুপ্ত হতে দিবেনা। সেই লক্ষে জনতা কে সাথেনিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে ব্যাপক জনসমর্থন সাথে নিয়ে জনসংযোগে নির্বাচনী মাঠে নেমেছেন।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button