রাজনীতিরাজশাহীরাজশাহীর সংবাদ

রাজশাহীতে সাংবাদিকের উপর হামলাকারী সন্ত্রাসী রাব্বানী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

গত ২২ সেপ্টেম্বর রাতে রাজশাহী মডেল প্রেসক্লাবে হামলা চালিয়ে মডেল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদকসহ ৩ জনকে গুরুতর আহত করেন রাজশাহীর চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী বাহিনী।

এই ঘটনায় ২২ সেপ্টেম্বর রাতেই রাজশাহী মাদক বিরোধী সংগঠন ২১ এর সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী মডেল প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাফিকুর রহমান লালু রাতেই এই ঘটনার নিন্দা জানিয়ে এক বিবৃতি দেন।

তারা বিবৃতিতে উল্লেখ করেন, রাজশাহী মাদক বিরোধী সংগঠন ২১ এর সভাপতি ও রাজশাহী মডেল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক সহ অনান্য সাংবাদিকরা রাজশাহী মডেল প্রেসক্লাবে অবস্থান করছিলেন। এ সময় পুর্ব পরিকল্পনাকারী মতিহার থানার অক্টোর মোড় এলাকার মাসুদ রানা রাব্বানী, শিরোইল কলোনীর সাড়ে তিন নং গলির বাসের হেলপার বিশাল, উপশহর এলাকার ১৫ মামলার আসামি কাচু সহ অজ্ঞাত ২০-২৫ জনের সন্ত্রাসী দল এই হামলা চালায়।

আর এম পি পুলিশের সুত্র অনুসারে, মতিহার থানার সাংবাদিক পরিচয়দানকারী রাব্বানীর বিরুদ্ধে ১২ টির উপর মামলা চলমান রয়েছে। এর মধ্যে জননিরাপত্তা আইনে ৫ বছরের সাজা হওয়া মামলার অনুসন্ধান মিলেছে রাব্বানীর বিরুদ্ধে। রাসিকের মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনের গাড়িতে হামলার মামলায় চার্জসিটভুক্ত আসামি এই রাব্বানী। ২০১৩ সালে নিজ বাড়ি থেকে মতিহার থানা পুলিশ বোমা ও বোমা তৌরির সরঞ্জামসহ আটক করেন এই রাব্বানীকে। ২০১৬ সালে রাজশাহীর মাদকের বড় ডিলার ও জামাত শিবিরের ক্যাডার হিসেবে পুলিশ কমিশনারের নিকট অভিযোগ দায়ের করেন নগরবাসী।

এ সময় নগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের সদস্যরা তদন্ত করেন, ঘটনার সত্যতা নিয়ে একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন। তিনটি সংসদীয় নির্বাচনে এই রাব্বানী রাজশাহী শহর থেকে অনত্র গাঢাকা দেন। গোয়েন্দা সুত্রমতে নির্বাচনে রাব্বানী থাকলে সরকার বিরোধী কর্মকান্ড হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলেই গোয়েন্দা সংস্থা তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করে। এই রাব্বানীর সরকার বিরোধী কর্মকান্ড নিয়ে রাজশাহী মহানগরীর অনেক পুলিশ সদস্য প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও ভেতরে রয়েছে তাদের চাপাক্ষোভ।

একাধিক পুলিশ এই রাব্বানীর কারণে মিথ্যে অপবাদ নিয়ে বিদায় নিয়েছে আর এম পি ও জেলা পুলিশ হতে। অভিযোগ রয়েছে, রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার শহিদুল্লা পিপি এম থাকাকালীন সময়ে এই রাব্বানী পুলিশ সুপারের সাথে ছবি তুলে যোগাযোগ মাধ্যমে ছাড়ার ৩০ মিনিটের মধ্যেই পুলিশের উপর মহলের নির্দেশে রাব্বানীকে আটক করে ছবি উঠানোর জন্য লাঞ্চিত করা হয়। সেই সাথে ছবি মুছে দেওয়া হয়। এমন বিতর্কিত সরকার বিরোধী মাদক ব্যবসায়ী ব্যক্তি কিভাবে সাংবাদিকতার মত মহান পেশার নাম ব্যবহার করছে, সেটি নিয়ে চলছে সুশীল সমাজে আলোচনা। আর এম পির সিসি ক্যামেরার প্রযুক্তি দেখে রাব্বানী ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীকে সনাক্ত করেন নগর পুলিশ।

২৪ সেপ্টেম্বর সকাল ৯ টায় রাজশাহী নগর পুলিশের যোগ্য পুলিশ কমিশনারের নির্দেশে সাংবাদিকদের উপর হামলাকারী সেই রাব্বানীকে গ্রেপ্তার করেন ওসি নিবারন চন্দ্র বর্মন। সন্ত্রাসী রাব্বানীকে গ্রেপ্তারের খবর রাজশাহীতে ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ মানুষরা স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেন।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button