আন্তর্জাতিক সংবাদসংবাদ সারাদেশ

৩০ বছরের মধ্যে বাস্তুচ্যুত হওয়ার সম্ভাবনা ২ কোটি বাংলাদেশির

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এভাবে বাড়তে থাকলে আগামী ২০৫০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের প্রায় ১৭% এলাকা তলিয়ে যেতে পারে পানির নিচে। পাশাপাশি আশঙ্কা রয়েছে ২ কোটি মানুষ বাস্তুচ্যুত হওয়ার। এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাচলেট মানবাধিকার পরিষদের ৪৮তম অধিবেশনে এক প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে এ তথ্য দেন। তিনি বলেন, মালদ্বীপের স্থলভাগের ৮০% এর  বেশি এলাকার অবস্থান রয়েছে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে মাত্র এক মিটারেরও কম উচ্চতায়। ইতোমধ্যে দেশটি জলবায়ু পরিবর্তনের মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এটি আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে।

ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, মিয়ানমার, থাইল্যান্ড এবং ভিয়েতনামসহ দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার বেশিরভাগ এলাকায় ২০৫০ সালের মধ্যে দৈনিক উচ্চ জোয়ারের কারণে বন্যা হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ ছাড়া, প্রত্যেক বছর গড়ে ৭ কোটি ৯০ লাখের মতো মানুষের বাড়িতে বন্যা প্রভাব ফেলতে পারে।

প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে বাস্তুচ্যুত হওয়ার ঘটনা দক্ষিণ এশিয়ায় একটি গুরুতর সমস্যা। এ অঞ্চলের অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুত পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র বলছে, ২০১৯ সালে বাংলাদেশ, চীন, ভারত এবং ফিলিপাইন এই অঞ্চলের সব দেশের তুলনায় প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে সবচেয়ে বেশি বাস্তুচ্যুতির ঘটনা ঘটেছে। যা বিশ্বের মোট ৭০% এর সমান।

পরিবেশগত দুর্যোগের কারণে বাস্তুচ্যুত হওয়ার ঘটনা দক্ষিণ এশিয়ার একটি গুরুতর সমস্যা। এ অঞ্চলের অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুত পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র বলছে, ২০১৯ সালে বাংলাদেশ, চীন, ভারত এবং ফিলিপাইন এই অঞ্চলের সব দেশের তুলনায় প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে সবচেয়ে বেশি বাস্তুচ্যুতির ঘটনা ঘটেছে। যা বিশ্বের মোট ৭০% সমান।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button