রাজশাহীর সংবাদসংবাদ সারাদেশ

চলতি বছরে সম্ভাবনা নেই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার

জাতীয় ডেস্কঃ

সরকার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ সালের প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। তবে, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দীর্ঘদিন ধরেই বন্ধ রয়েছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩২ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষাটি। মূলত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এ নিয়োগ পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। সরকার আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে স্কুল-কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত নিলেও এখন পর্যন্ত পরীক্ষা নিতে প্রস্তুত নয়। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই) এর দেওয়া এক ইঙ্গিতপূর্ণ বার্তা অনুযায়ী আগামী বছরের শুরুতে এ নিয়োগ পরীক্ষা হতে পারে বলে ধারনা করা যাচ্ছে।

তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষণা অনুযায়ী স্থগিত হয়ে থাকা নিয়োগ পরীক্ষা আয়োজনের সার্বিক প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে ডিপিই। ডিপিই সূত্রে জানা যায়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সহকারী শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়েছিল। তবে স্কুল-কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত গ্রহন করার পর থেকেই পরীক্ষা আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তুতি নেওয়া হলেও চলতি বছর পরীক্ষা আয়োজনের কোন সম্ভাবনা নেই। কেননা, অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ পাবলিক পরীক্ষা আগামী নভেম্বর এবং ডিসেম্বর মাসেই অনুষ্ঠিত হবে। এ সময় পরীক্ষা আয়োজনের জন্য পর্যাপ্ত কেন্দ্র পাওয়া যাবে না। তবে করোনা পরিস্থিতির আশানুরূপ উন্নতি হলে আগামী বছরের শুরুতেই সহকারী শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা হতে পারে।

এ বিষয়ে ডিপিইর অতিরিক্ত মহাপরিচালক সোহেল আহমেদ বলেন, স্কুল-কলেজ খোলার ঘোষণায় আমরা সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি শুরু করেছি। ইতোমধ্যে পরীক্ষার ওএমআর শিট ছাপানোর কাজ শুরু হয়েছে, প্রশ্নপত্র তৈরির কাজও চলছে। তিনি আরও বলেন, পিএসসি, জেএসসি, এসএসসি এবং এইচএসসির মতো গুরুত্বপূর্ণ পাবলিক পরীক্ষাগুলো এ বছর আয়োজন করা হবে। ফলে চলতি বছর পরীক্ষা আয়োজনের কোন সম্ভাবনা নেই। ৩২ হাজার পদের বিপরীতে এবার ১৩ লাখের বেশি প্রার্থী আবেদন করেছেন বলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর সূত্রে জানা যায়।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button