মোহনপুররাজশাহীরাজশাহীর সংবাদ

মোহনপুরে যৌতুক মামলায় আটক হলেন কৃষি কর্মকর্তা

মোহনপুর প্রতিনিধিঃ

রাজশাহীর মোহনপুরে যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূকে মারধর করে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গতকাল ১ সেপ্টেম্বর বুধবার রাতে নির্যাতনের শিকার ঐ গৃহবধূর বাবা শামসুল আলম নিজে বাদি হয়ে মেয়ের স্বামী উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল মতিনের বিরুদ্ধে মোহনপুর থানায় নারী ও শিশু আইনে মামলা করেছেন।

নির্যাতিতা গৃহবধূর নাম হল শারমিন সুলতানা (২২)। তাঁর বাবার বাড়ি উপজেলার বৃ-হাটরা গ্রামে। গৃহবধূ শারমিন সুলতানার ভাষ্য অনুযায়ী বিগত ২০১৮ সালে নওগাঁ জেলার মান্দা উপজেলার চকমানিক গ্রামের আব্দুল কাশেমের ছেলে ও উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল মতিন (২৮)এর সাথে তাঁর বিয়ে হয়। বিয়ের সময় তাঁর স্বামীকে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার দেওয়া হয়েছে। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই যৌতুকের জন্য তাঁকে ফের চাপ দিতে থাকেন স্বামী ও তাঁর পরিবারের লোকজন। যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে তাঁর স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ি প্রায়ই তাঁকে মারধর করতেন। অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে তাঁকে শারীরিক নির্যাতনও করা হতো।

মামলার এজাহার ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, বুধবার আব্দুল মতিন বৃ-হাটরা গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে আসেন। রাত ৭.৩০ মিনিটে আবারো শারমিন সুলতানার কাছে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তাঁকে লাঠি দিয়ে বেদম প্রহার করে। তখন স্থানীয়রা তার স্বামী কে আটকে রাখেন। মোহনপুর থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ গিয়ে আহত অবস্থায় গৃহবধূকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। স্বামী আব্দুল মতিনকে আটক করে পুলিশ।

গৃহবধূ শারমিন সুলতানার বাবা শামসুল আলম বলেন, যৌতুকের টাকার জন্য মেয়েটাকে প্রতিনিয়ত মারধর করা হয়। বিয়ের সময় নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার দেয়া হয়েছে। এখন আরও ৫ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য আমার বাড়িতে এসে মেয়েকে মারধর করেছে আব্দুল মতিন।

এ বিষয়ে শারমিন সুলতানা বলেন, বিয়ের পর থেকে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে আমাকে মারধর করত স্বামীসহ তার পরিবারের লোকজন। শ্বশুর-শাশুড়ির কথা মতো স্বামী যৌতুকের জন্য চাপ সৃষ্টি করত। সংসারের কথা চিন্তা করে অনেক নির্যাতন সহ্য করেছি। আমি এখন এর উপযুক্ত বিচার চাই।

অভিযোগের বিষয়ে জানার জন্য আব্দুল মতিনের পরিবারের লোকজনের সাথে যোগাযোগ করে কথা বলা সম্ভব হয়নি। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সহকারী পরিদর্শক (এসআই) আমানউল্লাহ বলেন, মামলার পর রাতেই স্বামী আব্দুল মতিনকে আটক করা হয়েছে। মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌহিদুল ইসলাম বলেন, মামলার পর রাতেই আসামী আব্দুল মতিনকে আটক করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button