রাজশাহীরাজশাহীর সংবাদ

রাজশাহীতে রেলের জমি নিয়ে দ্বন্দ্ব, দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

রাজশাহীতে রেলের জমি দখল নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে উভয় পক্ষ থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে। তবে, আজ মঙ্গলবার ৩১ আগস্ট বেলা ১১.৩০ মিনিটে এক পক্ষ সংবাদ সম্মেলন করেছে।

রাজশাহী সংবাদিক ইউনিয়ন অফিসে অনুষ্ঠিত ঐ সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী রবিউল ইসলাম অভিযোগ করেন , তার লিজকৃত জমির উপরে থাকা টিনের ঘর ভেঙ্গেছে রাশেদ খান মেনন (পাপুল)। তারা এই জায়গা টি দখলের পাইতারা করছে। তবে বিষয়টি নিয়ে রাশেদ খান মেনন পাপুল জানান, প্রত্যেকের জমির সামনে যে রেলওয়ের জায়গা আছে সেগুলো ওই জমির মালিক ব্যবহার করে। দীর্ঘদিন আগে আমরা গ্রামের বাড়ি তানোরে থাকতাম। তখন রবিউল ইসলামের বাবাকে এই বাড়িটি কেআরটেকার হিসেবে দেখভাল করতে দেওয়া হয়। সেই সময় তিনি আমাদের বাড়ির সামনের রেলওয়ের জায়গা রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের থেকে লিজ নিয়েছে বলে জানান।

অন্যদিকে, অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, নগরীর দড়িখরবনা এলাকার মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে রবিউল ইসলাম। বক্তব্যে তিনি বলেন, আমার বাবা মৃত আব্দুল খালেক জীবিত থাকা অবস্থায় নগরীর দড়িখরবনা এলাকার রেললাইন সংলগ্ন ০.০৯ একর জায়গা বিভাগীয় এস্টেট অফিস পাকশী থেকে কৃষি জমি হিসেবে লিজ নিয়ে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত ভোগ দখল করে। পরবর্তীতে তিনি মারা গেলে আমি (রবিউল ইসলাম) বাংলা ১৪২২ সাল পর্যন্ত খাজনা পরিশোধ করি এবং সেখানে ঘনবসতি গড়ে ওঠায় ফসলাদি না হওয়ায় কাঁচাঘর নির্মাণ করে ভোগদখল করি।

তবে, গতকাল সোমবার ৩০ আগস্ট দুপুরে পাশের আব্দুস সামাদের ছেলে মো. রাশেদ খান মেনন পাপুল অবৈধ ভাবে জোরপূর্বক জমি দখল করে ঘর ভাঙচুর করে। এ নিয়ে পাপুলকে নিষেধ করতে গেলে এক পর্যায়ে কথা কাটাকাটি হয় ও গালাগালি শুরু করে। এছাড়া পাপুল, পপি, হ্যাপি, নিপা আমার (রবিউল ইসলাম) বাড়িতে হামলা চালায়।

এ বিষয়ে অপর পক্ষ পাপুলের বাবা মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম বলেন, তাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে তা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। তবে, অভিযোগকারীদের লিজের কোন কাগজপত্র নেই। তারা জোরপূর্বক রেলেওয়ের জায়গা দখল করে রেখেছে। এছাড়া বাড়ির পাশের রাসিকের ড্রেন নিজের বলে দাবি করে আমাদের বিভিন্ন সময় পানি নামাকে কেন্দ্র করে হয়রানি করেছে। তারাই গতকাল গোয়াল ঘরে টিন তোলাকে কেন্দ্র করে ছেলে পাপুলকে ডেকে মারধর করে। এ বিষয়ে বোয়ালিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এই ঘটনায় আমার ছেলে পাপুলের অন্তসত্বা স্ত্রী অহত হয়েছে। বর্তমানে, সে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি আছে।

বোয়ালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারণ চন্দ্রবর্মন বলেন, এটি রেলওয়ের জায়গা। তবুও দুই পক্ষ এটি নিয়ে বিবাদে জড়িয়েছে। এ নিয়ে দুই পক্ষই অভিযোগ করেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button