গোদাগাড়ী

গোদাগাড়ীর তিনটি গ্রাম পদ্মানদীর ধ্বংসের মুখে

গোদাগাড়ী প্রতিনিধিঃ

মাঝির মুখ থেকে ভেসে আসা অন্তরের সবটুকু কষ্ট দিয়ে গাওয়া গান সর্বনাশা পদ্মা তোর কাছে শুধাই আজ যেন সত্যি সর্বনাশের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে গোদাগাড়ী উপজেলার তিনটি গ্রামের মানুষের জীবন।

আলিপুর নিমতলা খাজীরা গাতি মোল্লাপাড়া, এই ৩ টি গ্রাম বর্তমান পদ্মা নদীর কালো থাবার মুখে দাঁড়িয়ে আছে। পদ্মা নদী কে ঘিরে এই তিনটি গ্রামের মানুষ জীবিকা নির্বাহ করে। আজ সেই পদ্মার কালো থাবা থেকে নিজেদের বসত-ভিটা কে বাঁচানোর জন্য পদ্মার হায়নার কাছে হারমানতে হচ্ছে। এই তিনটি গ্রামে প্রায় ৬০০ বাসস্থান রয়েছে এবং ১০০০বিঘা আবাদযোগ্য অধিকাংশ বিলীন হওয়ার পথে।তিনটি গ্রামের পদ্মাপাড়ের আয়তন প্রায় ৫ থেকে ৬কিলোমিটার বাঁধ নির্মাণ অতি জরুরী হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এই তিনটি গ্রামে দুইটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মসজিদ-মন্দির মিলে ১০ টি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এবং পদ্মার চর ভূমিকে লক্ষ করে প্রায় প্রতিটি বাড়িতে গরু মহিষ ছাগল এর খামার গড়ে উঠেছে। ইতিমধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ভাঙ্গন কবলিত তিনটি গ্রাম পরিদর্শন করিয়াছে।এবং দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়ে যান।।

ভাঙ্গন কবলিত ভুক্তভোগীদের দাবি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ যেন ভাঙ্গন রোধে জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করে। বর্তমান পদ্মার পানি ভয়ংকরভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে ইতিমধ্যে গবাদি চরণভূমি গুলো প্লাবিত হয়েছে। গবাদি পশু ও মানুষের খাদ্য সংকট হবে।পশু সম্পদ ও দুর্যোগ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ গণ এর নজর দারি রাখার জন্য সর্বসাধারণ বিনয়ের সহিত আহ্বান রাখছেন।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button